৪ সেপ্টেম্বর তিন পার্বত্য জেলায় হরতাল ডেকেছে ৫ বাঙালি সংগঠন

hortalনিজস্ব প্রতিবেদক: পার্বত্য চট্রগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন ২০০১ ও সংশোধনী ২০১৬ বাস্তবায়নের জন্য খুব তড়িগড়ি করে আগামী ৪ঠা সেপ্টেম্বর বৈঠক আহবান করার প্রতিবাদে আগামী ৪সেপ্টেম্বর তিন পার্বত্য জেলায় সকাল সন্ধ্যা হরতাল ও ঘেরাও কর্মসূচির ডাক দিয়েছে পার্বত্য জেলার ৫বাঙালি সংগঠন। আজ (বুধবার) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচি পালনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূঁইয়া।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, পার্বত্য জনগণের আন্দোলনকে উপেক্ষা করে সরকার পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন ২০০১ ও তার সংশোধনী ২০১৬ বাস্তবায়নের জন্য খুব তড়িগড়ি করে আগামী ৪ঠা সেপ্টেম্বর বৈঠক ডেকেছে, যা বাঙ্গালীদের আবেগের সাথে এক ধরনের তামাশার শামিল । সরকারের এ কর্মসূচির প্রতিবাদে পার্বত্য চট্রগ্রামের ৫টি বাঙালী সংগঠন  আজ বুধবার (৩১ আগস্ট) সকাল ১১টায় পার্বত্য গণ পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয়ে পার্বত্য নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আলকাছ আল মামুন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে  জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন-পার্বত্য চট্টগ্রাম সমধিকার আন্দোলনের মো. মনিরুজ্জামান মনির, পার্বত্য গণ পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট পারভেজ তালুকদার, পার্বত্য গণ পরিষদের মহাসচিব এডভোকেট মোহাম্মদ আলম খান, পার্বত্য নাগরিক পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আহম্মেদ রাজু, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ এর ঢাকা মহানগর সভাপতি সাহাদাত ফরাজি সাকিব, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র ঐক্য পরিষদ এর ঢাকা মহানগর সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম খান,পার্বত্য নাগরিক পরিষদের যুগ্ন সম্পাদক এনামুল হক প্রমুখ ।

সভায় সরকারের বিতর্কিত ভূমি কমিশনের  বৈঠকের প্রতিবাদে আগামী ৪ঠা সেপ্টেম্বর তিন পার্বত্য জেলায় সকাল- সন্ধ্যা হরতালের কর্মসূচি পালনের আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে বক্তরা বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের সমস্যা সমাধানে সরকার আন্তরিক নয় । তারা এক চেটিয়া উপজাতীদের পক্ষে রায় দিয়ে আসছে । পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন-২০১৬ মন্ত্রীসভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে যেখানে বাঙ্গলীদের পক্ষ থেকে একজন প্রতিনিধিও রাখা হয়নি । এই সংশোধিত ভূমি কমিশন আইন কার্যকর হলে পার্বত্যাঞ্চলে তুমুল সংঘাতের সম্ভবনা দেখা দিবে তাতে কোন সন্দেহ নেই । এই বির্তকীত আইন বাতিল করার দাবিসহ পার্বত্য চট্রগ্রামের ৪৮% বাঙ্গালীদের প্রানের দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি অনুরোধ জানানো হয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*