সাংবাদিক শিমুলের রক্ত বৃথা যেতে দেব না: খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন

Tarun Sir

সাংবাদিক শিমুলের রক্ত বৃথা যেতে দেব না: খাগড়াছড়ির প্রবীণ সাংবাদিক তরুন কুমার ভট্টাচার্য্য

নিজস্ব প্রতিবেদক: দৈনিক সমকালের সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর প্রতিনিধি সাংবাদিক আবদুল হাকিম শিমুল হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা, ডেইলি অবজারভার সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাব ও খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জেলা শহরের শাপলা চত্বরে এ কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে অংশ নেয়, জেলা সদরসহ পুরো জেলার শতাধিক সংবাদকর্মী এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।

মানববন্ধন চলাকালে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, সাংবাদিক শিমুলের রক্ত বৃথা যেতে দেব না। এসময় বক্তারা  সাংবাদিক শিমুলকে পরিকল্পিতভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে দাবি করে যত দ্রুত সম্ভব শিমুল হত্যাকারী পৌর মেয়রকে গ্রেফতার করে দ্রুত বিচার আইনের শাস্তির দাবি জানান।

খাগড়াছড়ি জেলার প্রবীণ সাংবাদিক দৈনিক ইত্তেফাক প্রতিনিনধি তরুণ ভট্টাচার্য্য’র সভাপতিত্বে ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক দৈনিক কালেরকণ্ঠ প্রতিনিধি আবু দাউদের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)-এর জেলা সভাপতি ও খাগড়াছডি় সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বোধিসত্ব দেওয়ান, খাগড়াছডি় প্রেসক্লাবের সভাপতি জিতেন বড়ুয়া, খাগড়াছডি় সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি নুরুল আজম, দৈনিক সমকালের প্রতিনিধি প্রদীপ চৌধুরী, একুশে টেলিভিশন প্রতিনিধি চিংমেপ্রু মারমা, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি’র সভাপতি সুদর্শন দত্ত, আওয়ামীলীগ নেতা শানে আলম, দীঘিনালা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম। এছাড়াও সংহতি প্রকাশ করেন পানছডি় প্রেসক্লাব সভাপতি শাহজাহান কবীর সাজু এবং গুইমারা প্রেসক্লাব সভাপতি আব্দুল আলী  ।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নারীনেত্রী লালসা চাকমা, খাগড়াছডি় সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা, দীঘিনালা পরিবেশ সুরক্ষা আন্দোলনের সভাপতি জাকির হোসেনসহ জেলার পেশাজীবী শতাধিক সংবাদকর্মী।

প্রসঙ্গত: গত বৃহস্পতিবার দুপরে শাহজাদপুরের আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র হালিমুল হক মিরুর ছোট ভাই হাফিজুল হক পৌর শহরের কালীবাড়ি মোড়ে শাহজাদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিজয় মাহমুদকে মারধর করেন। খবর ছড়িয়ে পড়লে বিজয়ের সমর্থক, কলেজ ছাত্ররা ও মহল্লার  লোকজন একযোগে  বেলা তিনটার দিকে মেয়রের বাসায় হামলা চালায়। হামলাকারীদের লক্ষ্য করে মেয়র হালিমুল হক মিরু তার শর্টগান  থেকে গুলি ছোড়েন। এসময় সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হন আবদুল হাকিম শিমুল। সংঘর্ষের সময় তার মাথা ও মুখে গুলি লাগে। তাকে প্রথমে শাহজাদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থা অবনতি হলে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকায় নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*