শিক্ষার মানোন্নয়নে পাহাড়ে-পাহাড়ে বিরামহীন কংজরী

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে খাগড়াছড়ি জেলার দুর্গম পাহাড় থেকে পাহাড়ে বিরামহীন ছুটে চলছেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের শিক্ষাবান্ধব চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী। পৌছে দিচ্ছেন বর্তমান সরকারের শিক্ষাবার্তা, সুযোগ সুবিধা প্রদানসহ তুলে ধরছেন বর্তমান সরকারের সাফল্য ডিজিটাল ও উন্নত মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ গঠনের ভিশন বার্তা। এমনটাই চিত্র ওঠে এসেছে বর্তমান চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর মাসওয়ারী ক্যালেন্ডারের পাতা ঘেঁটে। স্থানীয়দের অভিমত, পাজেপ চেয়ারম্যানের এমন বিরামহীনতায় পাহাড়ের  প্রাথমিক শিক্ষায় এসেছে পরিবর্তন, এসেছে নতুনত্ব, দেখিয়েছেন দৃষ্টান্ত।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি গতকাল (২৭মার্চ) ও আজ মঙ্গলবার জেলার মাটিরাঙায় দুর্গম এলাকার একাধিক বিদ্যালয়ে মহান স্বাধীনতা দিবস ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠিত মাটিরাঙার ধলিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়েও তিনি গতকাল উপস্থিত হন। বিদ্যালয়ের প্রবীন প্রধান শিক্ষক তোফায়েল আহমেদ জানান, ৮০সালের পরে স্থানীয় সরকার পরিষদ পরবর্তী পার্বত্য জেলা পরিষদ হতে সর্বপ্রথমই চেয়ারম্যান হিসেবেই কংজরী চৌধুরীর আগমন ঘটে বিদ্যালয়টিতে। এখানেই শেষ নয়, আজ মঙ্গলবারও তিনি উপস্থিত হন একই উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি জনপদ গকুলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। যে বিদ্যালয়েও পাজেপ চেয়ারম্যান হিসেবে তিনিই প্রথম গিয়েছেন এবং স্কুলটি সম্প্রসারিত ভবন উদ্বোধন করেন।  স্থানীয়রা জানান, স্কুলটি দুর্গম পাহাড়ে নির্মিত হওয়ায় স্কুল পর্যন্ত কোন যানবাহন যাতায়াত করতে পারে না, নেই কোন চলাচলের সড়ক । দুর্গমতার কারনে কোন ভিআইপি এ বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করতে মুখ ফিরিয়ে নেয়। এমন স্কুলেও পাজেপ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী উপস্থিত হয়ে এলাকাবাসীকে মুগ্ধ করেছেন

এদিকে, বর্ষপঞ্জিকা খতিয়ে দেখা যায়, পাজেপ, খাগড়াছড়ির বর্তমান চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী দায়িত্ব নেওয়ার পর পরই পাহাড়ের শিক্ষার মানোন্নয়নে ব্যাপক সিদ্ধান্ত নেন । বিশেষ করে দুর্গম এলাকা সমূহের বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে তদারকি অব্যাহত রেখেছেন। এছাড়াও এবছর থেকে শহরের নামীদামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ন্যায় বিনামূল্যে শিক্ষা ডায়েরি বিতরণ কার্যক্রম প্রথম বারের পাহাড়ের ইতিহাসে যুক্ত করেছেন এই চেয়ারম্যান। এখানেই বিরামহীনতা ও দৃষ্টান্তের ইতি নয়, কোন প্রকার সিডিউল ছাড়া তিনি আকস্মিক বিদ্যালয় পরিদর্শন অব্যাহত রেখে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রমে এনেছেন স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা।

আমাদের মাটিরাঙা সংবাদদাতা জানান, দুর্গম গকুল পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন এবং মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান, মাটিরাঙ্গা জোনের উপ-অধিনায়ক মো. মিজানুর রহমান পিএসসি-জি, বাংলাদেশ ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদের সাবেক সভাপতি মনিন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা ভারপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কৃষ্ণলাল দেবনাথ বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা। এছাড়াও স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি বিবিন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা রিসোর্স অফিসার মো. আজগর হোসেন, ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার দিপার মোহন ত্রিপুরা, ও গকুলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বীরলাল ত্রিপুরা প্রমুখ ।

এর আগে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়নের সহযোগিতায় গকুলপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সম্প্রসারিত নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন করেন, পাজেপ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে গকুলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন তিনি। পরে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে স্মৃতি স্বরুপ খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীসহ আমন্ত্রিত অতিথিতের হাতে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি বিবিন্দ্র কিশোর ত্রিপুরা ও প্রধান শিক্ষক বীরলাল ত্রিপুরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*