রাঙামাটিতে আটক ভূয়া সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট ৩ বৌদ্ধ ভিক্ষুসহ ১৬ জন কারাগারে

ranga 7নিজস্ব প্রতিবেদক: রাঙামাটির বরকল উপজেলায় সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পরিচয়দানকারী উপজাতিয় যুবক বিভাষ দেওয়ান ও ৩ বৌদ্ধ ভিক্ষুসহ আটক ১৬জনকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত। শনিবার বিকালে সাড়ে ৩টায় অভিযুক্তদের রাঙামাটি আদালতে হাজির করলে অভিযুক্তদের জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন রাঙামাটি চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত। পুলিশ জানায়, আসামিদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইন ও সরকারী গোপন আইনে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। তবে বিজ্ঞ আদালত রিমান্ড না দিয়ে আগামীকাল রবিবার মামলার পরবর্তী দিন নির্ধারণ করে অভিযুক্তদের জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বরকল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিলু কান্তি বড়ুয়া।

অভিযুক্তরা হলেন- সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পরিচয়দানকারী উপজাতিয় যুবকের নাম বিভাষ দেওয়ান। সে রাঙামাটির বিজয় সরনী এলাকার অবসরপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিনয় কৃষ্ণ দেওয়ান (বি কে দেওয়ান) ও কনিকা দেওয়ানের ছেলে। অপর তিন বৌদ্ধ ভিক্ষুরা হলেন- বুদ্ধজ্যাতি ভান্তে, শান্ত প্রিয় ভান্তে ও গিরিমান্দ ভান্তে। তাদের সঙ্গে আটককৃতরা হলেন- রিটেন চাকমা, সুনীতি বিকাশ চাকমা, রিপেন চাকমা, রিগেন চাকমা, ছন্দ সেন চাকমা, মুক্তবীর চাকমা, রুহিত চাকমা, জ্যাকসন চাকমা। এঘটনায় আটক করা হয় আরও ৪জনকে। শনিবার বিভাষ দেওয়ানের তথ্যে ভিত্তিতে র‌্যাব-৭ অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রামে বায়েজিদ থেকে ৪ যুবককে আটক করে রাঙামাটি কোতয়ালীতে হস্তান্তর করে। তবে তাৎক্ষণিক তাদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। পুলিশের তথ্য সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে রাঙামাটিতে বরকল উপজেলায় ১২জনের একটি গ্রুপ বিজিবি ক্যাম্পে যায়। তাদের মধ্যে বিভেষ দেওয়ান নামে এক উপজাতিয় যুবক নিজেকে সেনাবাহিনীর সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট পরিচয় দিলে বিজিবি তাদের আমন্ত্রণ জানায়। তার সফর সঙ্গি ছিল রাঙামাটি রাজবন বিহারের ৩ভিক্ষুসহ আরও কয়েকজন। তবে ভুয়া সেনা কর্মকর্তার আচার আচরণ ও কথাবার্তায় সন্দেহ হলে তারা বরকলের বিজিবি জোনে খবর দেন। তাছাড়া বরকল সদরের বিজিবি চেকপোস্ট এলাকাটি তারা বিচ্ছিন্নভাবে পার হচ্ছিলেন। এতে বিজিবির আরো সন্দেহ বেড়ে যায়। পরে তাদের আটক করে বিজিবির সদস্যরা। আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বেড়িয়ে আসে তাদের আসল পরিচয়।
Bua s lতাদের তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা হয়- ২২টি মোবাইল ফোন, ৩টি অত্যাধুনিক ক্যামেরা ছাড়াও নতুন মডেলের সেনা পোশাক-৩ জোড়া, ওয়ার্কিং ড্রেসের জার্সি-১টি, বিএমএ ক্যাডেটদের ব্যবহৃত হ্যান্ড ব্যাগ-১টি, অফিসার এসডি পোশাক-১ পেয়ার, বীর রেজিমেন্টের গ্রীণ ক্যাপ-১টি, র‌্যাংক ব্যাজ ২ লেঃ বীর-২ পেয়ার, র‌্যাংক ব্যাজ লেঃ বীর-১ পেয়ার, অফিসার মেসকীট-১ পেয়ার, বিভিন্ন ডিবিশনের ডিভ সাইন-৮টি, কমান্ড ব্যাজ-২টি, বিভাস লেখা নেইম প্লেট-২টি, ডিএমএস বুট-১ জোড়া, পিটি-সু-১ জোড়া, কালো মুজা-১ জোড়া, বেল্ট-১টি, কম্ব্যাট গেঞ্জি-১টি, প্যারা উইং গ্রীণ কালার-১টি, এ্যামোনেশন উইং-১টি, বিভাস লেখা অফিসার পরিচয় পত্র-১টি, ৭৪তম বিএম লং কোর্সের ক্রেষ্ট-১টি, ডেল কোম্পানীর ল্যাপটপ-১টি, এইচপি কোম্পানীর ল্যাপটপ-১টি, রিবন-২টি, মেডেল-২টি, চেতনা ও মূল্যবোধের কার্ড-১টি, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী লেখা-৩টি। উদ্ধারকৃত জিনিসপত্রসহ অভিযুক্তদের বরকল পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে বিজিবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*