মানিকছড়িতে যুবলীগ নেতার হাতে ব্যবসায়ী নাজেহাল! প্রতিবাদে বিক্ষোভ

manik yuvligমোঃ আকতার হোসেন: খাগড়াছড়ির মানিকছড়ির রাজ বাজারে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবলীগ নেতা মো. কালাম হোসেন এক বাজার ব্যবসায়ী নাজেহালের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার বিকালে ব্যবসায়ীরা দোকান-পাট বন্ধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। পৌনে এক ঘন্টা পর প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার বিকাল ৫টায় যুবলীগ নেতা মো. কালাম হোসেন বাজার ব্যবসায়ী ডাক্তার নারায়ণ চন্দ্র নাথের দোকানের সামনে মোটরসাইকেল রেখে মাছ বাজারে যায়। এ সময় একটি সিএনজি’র ধাক্কায় মোটর সাইকেলটি পড়ে গ্লাস ভেঙ্গে যায়। পরে সিএনসি’র চালক গাড়ীটি তুলে রেখে চলে যায়। পরে যুবলীগ নেতা কামাল এসে গাড়ীর গ্লাস ভাঙ্গা দেখে ওই ব্যবসায়ীর ওপর চড়াও হয় এবং মারধর করতে উদ্ধত হয়। পরে পাশের ব্যবসায়ী এগিয়ে এসে যুবলীগ নেতাকে শান্ত করেন। কিন্তু তাতেও ওই নেতা সন্তুষ্ট না হয়ে যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফতেহ-লোহানী লিটনকে খবর দিলে দ্রুত লিটন ছুঁটে আসেন এবং ডাক্তার নারায়ন চন্দ্র নাথ ও বাজার সেক্রেটারী মো. নুরুল ইসলামকে আবারও নাজেহাল করেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক মানিকছড়ি বাজার ব্যবসায়ীরা দোকান-পাট বন্ধ করে মিছিল নিয়ে থানায় রওয়ানা দেয়। এতে শত শত ব্যবসায়ীরা যোগ দিলে মিছিলটি বিক্ষোভে রুপান্তরিত হয়। পরে থানার ও.সি মো. শফিকুল ইসলাম, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. দিদারুল আলম, আ’লীগের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, সেক্রেটারী মো. মাঈন উদ্দীসসহ সেনাবাহিনী এসে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলেন এবং এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার হবে মর্মে আশ্বাস দিলে পৌনে ৬টা নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এদিকে বাজার ব্যবসায়ী ও গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির উপদেষ্টা ডাক্তার নারায়ণ চন্দ্রের ওপর যুবলীগ নেতার হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির সভাপতি ডাক্তার অমর কান্তি দত্ত ও সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার মো. রমজান আলী। তারা আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন। অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে জানান । থানার ও.সি মো. শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ এলে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*