মাটিরাঙ্গায় নৌকার টিকেট পেল ওরা সাতজন: বিদ্রোহী প্রার্থীর সম্ভাবনা

lucky 7নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রথমবারের ন্যায় জাতীয় রাজনৈতিক দলের দলীয় প্রতীকে নির্বাচন। প্রতিটি জেলায় আগে নৌকার টিকেট পেতেন শুধুমাত্র সাংসদরা। আর এখনতো নৌকা-ধানের শীষ সহ সবকটি রাজনৈতিক দলের প্রতীক তৃণমূল পর্যন্ত। এ কারনে ভোটের আগে ভোটও হচ্ছে পুরো দেশজুড়ে। দলীয় প্রতীক নিয়ে কাঁড়াকাড়িঁ দেশজুড়ে। থেমে নেয় পার্বত্য খাগড়াছড়ির ৩৬টি ইউনিয়নেও দলীয় প্রার্থীতা বাছাই। শনিবার সকালে খাগড়াছড়ির বৃহত্তর উপজেলায় নানা জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের ভোটে ৭টি ইউনিয়নের ৭জনের চূড়ান্ত করে উপজেলা আ’লীগ। শুরু থেকে এ উপজেলায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পাশাপাশি সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের ভোটাধিকার বিষয়ে দাবী থাকলেও কেন্দ্রীয় নিদের্শনা না থাকায় অপরাপর উপজেলার ন্যায় এ উপজেলায়ও প্রাথীর্তা বাছাই করা হয়েছে। জানা গেছে, এ কারনে এ উপজেলায় আ’লীগ দূর্গে বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রতিদ্বন্ধিতা করার সম্ভাবনা রয়েছে। সহযোগি সংগঠনগুলো নির্বাচনকালে নিষ্ক্রিয় ভূমিকা পালন করলে ঘটতে পারে নৌকার ভরাডুবি!

মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মোঃ শামছুল হক জানান, মাটিরাঙ্গার আমতলী ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ আবদুল গনি ৩৩ ভোটে, তাইন্দং ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক মোঃ তাজুল ইসলাম ৩৭ ভোটে, তবলছড়িতে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আবদুল কাদের ৩৭ ভোটে, বড়নাল ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মো; আলী আকবর ৪০ ভোটে, গোমতিতে মোঃ তোফাজ্জল হোসেন ৪৩ ভোটে, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক হিরন জয় ত্রিপুরা ৪৫ ভোটে এবং বেলছড়ি ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি আরো জানান, তৃনমুলের মতামতকে প্রাধান্য দিয়েই দলের একক প্রার্থী নির্বাচন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*