মন্ত্রীর আগমনে মহাসড়কে শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে মরিয়া খাগড়াছড়ি সওজ !

rastaনিজস্ব প্রতিবেদক: আগামীকাল (মঙ্গলবার) সাংগঠনিক সফরে খাগড়াছড়ি যাচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ’র নতুন সাধারন সম্পাদক, সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। মন্ত্রীর আগমনী বার্তায় নানা প্রস্তুতি নিয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ ও স্থানীয় প্রশাসন। থেমে নেয় খাগড়াছড়ি সড়ক জনপথ বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরাও। স্বল্প সময়ের মধ্যে তড়িঘড়ি ভাবে ঠিকঠাক করা হচ্ছে মহাসড়কগুলোর বেহালদশা। তড়িঘড়ি করে রাস্তায় দীর্ঘদিনের খাদ-খন্দক ভরাট করতে গিয়ে ব্যবহার করা হচ্ছে আবর্জনাযুক্ত মাটি, তার সাথে মিশানো হচ্ছে সরকারি ভিটোমিন। স্থানীয়দের অভিযোগ, মন্ত্রীর জন্য সড়ক জনপথ রাস্তার গর্তে মাটি, ইটের খোয়া ও পাথর এবং ভিটোমিন দিয়ে বালি ভরাট করে যেন ’শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে মরিয়া হয়ে ওঠেছে খাগড়াছড়ি সড়ক জনপথ বিভাগ’।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সোমবার বিকালে খাগড়াছড়ি বাসটার্মিনাল এলাকায় রাস্তায় মেরামত কাজ চালাচ্ছেন খাগড়াছড়ি সড়ক জনপথের কর্মচারী ও কিছু শ্রমিক। নিয়মতান্ত্রিক ভাবে গর্তগুলোকে প্রথমে পরিস্কার পরে ভিটোমিনযুক্ত পাথর দেয়ার নিয়ম থাকলেও তড়িঘড়ি ভাবে আবর্জনাযুক্ত মাটি ও ইটের খোয়া দিয়ে কোনরকম ভরাট কাজ চালিয়ে উপরে বালি দিয়ে কাজ সম্পন্ন করছে সড়ক জনপথ। এ কারনে রাস্তায় দেখা যায় চরম যানজট।
স্থানীয়দের অভিযোগ, রাস্তাটি দীর্ঘবছর যাবত খাদ-খন্দকে পড়ে থাকায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটে থাকে ওই এলাকায়। মন্ত্রীর আগমন ঘিরে রাস্তাটিতে যে ভাবে আবর্জনাযুক্ত মাটি ভরাট করা হচ্ছে তা হচ্ছে লোকদেখানো এবং মন্ত্রীকে খুশি করার জন্যই। অথচ ওই রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবত ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে জনদুর্ভোগে চরমে ওঠলে সওজ কর্তৃপ মেরামতের কোন উদ্যোগ নেয়নি।
স্থানীয় জনৈক আব্দুল হালিম জানান, সেতুমন্ত্রীর আগমনে আবর্জনাযুক্ত মাটি দিয়ে অনিয়ম দুর্ণীতি ঢাকার প্রতিযোগিতায় নেমেছেন সড়ক ও জনপথ। যে ভাবে তড়িঘড়ি দিয়ে নামওয়াস্ত মেরামত কাজ চালাচ্ছেন তা মন্ত্রীর বিদায়ের পর বা দুয়েকদিন ঠিকবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে চরম সংশয় প্রকাশ করেন তিনি। তিনি জনদুর্ভোগ পোহাতে মহাসড়কগুলোর সঠিকভাবে মেরামত কাজ বাস্তবায়নের দাবী জানান।
তবে আবদুল হালিমের মতো অনেক সাধারন মানুষের অভিযোগকে অস্বীকার করে খাগড়াছড়ি সড়ক জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোসলেহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘স্ধাারন মানুষের অভিযোগ করলে আমার কিছু যায় আসে না’। এটি বিভাগীয় মেরামত কাজ, যা প্রতিনিয়ত চলমান। তবে তিনি কাজের গুণগতমান নিয়ে কোন মন্তব্য করেননি।
এদিকে, খাগড়াছড়ি জেলার সাংসদ ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, সেতুমন্ত্রীর আগমনে আনন্দে উজ্জীবিত আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। তিনি (সেতুমন্ত্রী) খাগড়াছড়ি ঐতিহাসিক স্টেডিয়ামে বেলা ১১টায় জেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*