বুদ্ধের অহিংসনীতি অনুসরণ করে পাহাড়ে সাম্প্র্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধন সুদৃঢ় করতে হবে

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ির রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেড়িয়ার জেনারেল স.ম মাহবুব উল আলম,এইচজিপি, পিএসসি বলেছেন, বুদ্ধের অহিংসনীতি অনুসরণ ও প্রতিপালনের মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় সামাজিক শান্তি ও সাম্প্র্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধন সুদৃঢ় করতে হবে।

তিনি বুধবার বিকেলে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের কল্যানপুর মৈত্রী বৌদ্ধ বিহারে অনুষ্ঠিত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব কঠিন চীবর দানোৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, মহামতি ভগবান বুদ্ধের নীতি অনুযায়ী হিংসা বিদ্বেষ ভুলে মানুষে মানুষে ভ্রাতৃত্ববোধ, মমত্ববোধ ও মৈত্রী ভাব সৃষ্টি সম্ভব হলে পার্বত্য চট্টগ্রামকে স্থায়ী শান্তির আবাসভূমিতে পরিনত করা যাবে। তিনি বলেন বর্তমান সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করে যাচ্ছে । তাই আমাদের কে সকল অশুভ সা¤প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে সন্মিলিত প্রতিরোধ গড়ে তুলতে মানবতাবাদী দেশ প্রেমিক সকল মানুষের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস চালাতে হবে । কঠিন চীবর দান উৎসবের মধ্যে দিয়ে পার্বত্য অঞ্চলে সকল স¤প্রদায়ের মাঝে ভ্রাতৃত্ববোধ তৈরী হবে এবং হিংসা হানাহানী দুর হবে। সকল স¤প্রদায় যাতে এই দেশের স্ব স্ব অবস্থানে শান্তিতে বসবাস করতে পারে তার জন্য সকলের সম্মলিত প্রয়াস চালাতে হবে
পার্বত্য অঞ্চলের প্রবীন ধর্মীয় গুরু শ্রীমৎ চাইন্দাছড়া মহাস্থবির এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ ধর্মীয় সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান,সেনা বাহিনীর সদর জোনের জোন কমান্ডার লেঃকর্ণেল হাসান,পুলিশ সুপার মোঃ মজিদ আলী,সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চু মনি চাকমা, । অনুষ্ঠানে প্রধান ধর্মদেশক হিসেবে বক্তব্যে রাখেন বাংলাদেশ সংঘরাজ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহা সভার সাধারন সম্পাদক ভদন্ত এস লোকজিৎ থের , অন্যান্যদের মধ্যে ধর্মদেশনা প্রদান করেন পার্বত্য বৌদ্ধ ভিক্ষু সংঘের সভাপতি ভদন্ত অগ্রজ্যোতি মহাস্থবির, আদর্শ বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ নন্দ প্রিয় স্থবির ও মৈত্রী বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ জ্ঞানোলোক ভিক্ষু । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক জীতেন বড়ুয়া । এ উপলক্ষে সন্ধ্যায় হাজার বাতি প্রজ্বলন,আকাশ প্রদীপ ও ফানুস বাতি উত্তোলন করা হয় । এ ছাড়া বৌদ্ধ যুব সংঘের উদ্যেগে অনুষ্ঠিত হয় এক বর্নাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*