বান্দরবানে সেনাবাহিনী ও সন্ত্রাসী গ্রুপের বন্দুকযুদ্ধ: গুলিবিদ্ধ-২ শিশু

Ban Mapনিজস্ব প্রতিবেদক: জেলার লামার রূপসীপাড়ার নাইক্ষ্যং পাড়া বাজারে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী গ্রুপের সাথে সেনাবাহিনীর গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এসময়  ২ শিশু গুলিবিদ্ধ হয়েছে। সোমবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।   গুলিবিদ্ধ শিশুরা হলোপাংমে ম্রো () এবং দুইনং ম্রো ()

এদিকে, ঘটনাস্থল থেকে সেনাবাহিনীর সদস্যরা সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত অস্ত্রের ১টি ম্যাগজিনসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে। বর্তমানে ঘটনাস্থলসহ আশপাশের এলাকাগুলোতে সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

সেনাবাহিনী স্থানীয়রা সূত্রে জানা গেছে, নাইক্ষ্যং পাড়া বাজারে জলপাই রঙের পোষাক পরিহিত অস্ত্রধারী ১৪ জন সন্ত্রাসী অবস্থানের খবর পেয়ে সেনাবাহিনীর একটি দল ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়। সময় সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়লে সেনা সদস্যরাও পাল্টা গুলি ছোঁড়েন। দুপক্ষের মধ্যে প্রায় ত্রিশ মিনিট গোলাগুলির ঘটনা চলে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় ২০/৩০ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনায় গুলিতে দুই পাহাড়ী শিশু গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে। পরে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা নাইক্ষ্যং পাড়া গ্রামে ঢুকে পিছন দিয়ে পালিয়ে যায়। রুপসীপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাচিং প্রু বলেন, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা চাঁদার জন্য নাইক্ষ্যং পাড়ায় অবস্থান নেওয়ার খবর পেয়ে সেনাবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা গুলি বর্ষণ করে। সেনাবাহিনীও পাল্টা গুলি ছুঁড়লে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বান্দরবান৬৯ সেনা রিজিয়নের জিএসটু মেজর মেহেদী জানান, চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীদের একটি গ্রুপ নাইক্ষ্যংপাড়া অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অবস্থান করছিল। খবর পেয়ে নাইক্ষ্যং পাড়া ঘেরাও করে সেনাবাহিনী। বিষয়টি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা গুলি বর্ষণ করলে সেনাবাহিনীর সঙ্গে সন্ত্রাসীদের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই শিশু আহত হয়েছে। পরে সন্ত্রাসীরা পাড়ার ভিতর দিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে ম্যাগজিনসহ সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থলসহ আশপাশের এলাকাগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*