বাংলা ট্রিবিউন: দুই বছর পূর্তি তিন বছরে পা

বাংলা ট্রিবিউনপার্বত্যবাণী ডেস্ক: আজ ১৩ মে, শুক্রবার; বাংলা ট্রিবিউনের তৃতীয় জন্মদিন। ২০১৪ সালের এই দিনে অনলাইন পত্রিকা হিসেবে বাংলা ট্রিবিউন তার পাঠক, লেখক ও কর্মীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল। দিবসটি উপলক্ষে শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ ও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক জুলফিকার রাসেল।

এদিকে, বাংলা ট্রিবিউনের তৃতীয় বর্ষে পদার্পন উপলক্ষ্যে খাগড়াছড়িতে শুক্রবার সকালে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও কেককাটা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি সাংবাদিক জসিম ‍মজুমদার। তিনি পত্রিকাটি তৃতীয় বছরে যাত্রা শুরুর শুভলগ্নে সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। বর্ণাঢ্য র‌্যালিটি খাগড়াছড়ি পৌর টাউনহল চত্বর হতে শুরু হয়ে আদালতসড়কস্থ খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাব প্রাঙ্গনে গিয়ে শেষ হয়ে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে কেককাটার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হবে। তিনি আরো বলেন, আগামীতে পার্বত্য খাগড়াছড়ির উন্নয়ন, সমস্যা,সম্ভাবনা ও পর্যটন বান্ধব খাগড়াছড়ি জেলা গড়তে এ পত্রিকাটি আশানুরূপ সহায়ক ভূমিকা পালন করতে কাজ করে যাচ্ছে।

এদিকে, বাংলা ট্রিবিউনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক জুলফিকার রাসেল বলেন, বাংলা ট্রিবিউন সবসময়ই নতুন কিছু করতে চায়। এ কারণেই এ ধরনের একটি উদ্যোগ। পত্রিকার যে একটা গন্ধ, চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে পত্রিকা পড়ার যে আমেজ, অনলাইনে সে আমেজ নেই। কিন্তু অনলাইন এগিয়ে গেছে অনেক দূর। হঠাৎ সংবাদপত্রের রূপে সাজানোর বিষয়টি নিয়ে তিনি বলেন, আমরা চেয়েছি, আমাদের অনলাইন পাঠকদের পত্রিকার উপভোগ করাতে। শিগগিরই অনলাইনে প্রিন্টের আমেজ দিতে ই-পেপারে যাওয়ার পরিকল্পনা আছে। বিশেষ সংখ্যার মাধ্যমে তার একটি প্রস্তুতিও হয়ে গেল।
প্রকাশক কাজী আনিস আহমেদ বলেন, বাংলা ট্রিবিউন কারও চাপে মাথানত করবে না। খবরের পেছনের খবর তুলে আনবেই। তিনি বলেন, অনলাইন পত্রিকা খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। মানুষ এখন যেকোনও স্থানে বসে তার সংবাদ জেনে নিতে পারছে সেলফোনের মাধ্যমে। বিশ্বের প্রায় সব নামি পত্রিকা এখন অনলাইনের ওপর বিশেষ জোর দিয়েছে। বেশ কয়েকটি শীর্ষ পত্রিকা এখন শুধু অনলাইনে বের হচ্ছে।
প্রকাশক আরও বলেন, যুগোপযোগী বেশকিছু ফিচার নিয়ে আরও আধুনিক রূপে প্রকাশের পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। ধীরে-ধীরে সেগুলোর বাস্তবায়ন করা হবে। ১৩ মে এই আনন্দ আয়োজনে বাংলা ট্রিবিউন দিনব্যাপী নিজস্ব কার্যালয়ে উৎসবের আয়োজন করেছে। সন্ধ্যা ছয়টায় শুভানুধ্যায়ীদের উপস্থিতিতে কেক কাটার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে উৎসব উদযাপন করা হবে।
প্রতিষ্ঠানটির প্রধান বার্তা সম্পাদক হারুন উর রশীদ তার কর্মীদের উদ্যম ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন, বাংলা ট্রিবিউন তার নিজস্বতা ও খবরের যথার্থতা ঠিক রেখে এগিয়ে যাচ্ছে। অনলাইন হওয়ায় পত্রিকাটি টেলিভিশন, রেডিও, সংবাদপত্রসহ সব মাধ্যমকে ধারণ করতে পারে। বাংলা ট্রিবিউন আগামী দিনে সেই জায়গায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করতে চায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*