পুলিশ আইজির আশাবাদ: আগামী তিন মাসের মধ্যে খাগড়াছড়ি জঙ্গী ও মাদকমুক্ত হবে

 নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী তিন মাসের মধ্যে খাগড়াছড়ি জেলা জঙ্গী, মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত হিসেবে দেখতে চাই। এমনটাই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশ পুলিশে ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজি) এ কে এম শহিদুল হক বিপিএম, পিপিএম। তিনি আজ শুক্রবার বিকালে খাগড়াছড়ি পুলিশ লাইন্স মাঠে অনুষ্ঠিত কমিউনিটি পুলিশ সমাবেশে এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সমাবেশে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি জেলার সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি  সফিকুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান।

প্রধান অতিথি আইজি শহিদুল বলেন,  কমিউনিটি পুলিশের লক্ষ্য জনগণের সাথে পুলিশের সেতু বন্ধন। এই সেতু বন্ধনের ফলে জনগণের মাঝে পুলিশভীতি অনেকটা কমে গেছে। সমাজের সমস্যা সমাধানের জন্যই পুলিশিং কমিটি। এসময় প্রধান অতিথি আইজি দেশে জঙ্গী ও মাদককে অন্যতম সমস্যা  বলে চিহ্নিত করে বলেন,  জনগণের সহযোগিতার মাধ্যমে জঙ্গীবাদ নিমূলসহ মাদক ব্যবসায়ীদের চিহ্নিত করতে হবে মাদকাসক্তদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। জঙ্গী-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জনগণ কঠোর হলে পুলিশ পাশে থাকবে। সমাজ বিরোধি, জন বিরোধিদের নিমূল করতে হবে। তিনি আরো বলেন, পুলিশ জনগণের ক্ষমতা ও আইনের ক্ষমতার এক করে কাজ করতে চায়। পুলিশ গণতান্ত্রিক থাকবে, জবাবদিহিতামূলক পুলিশ থাকবে। এসময় তিনি সমাজ গঠন, সমাজের অবক্ষয় রোধ এবং মূল্যবোধের মাধ্যমে সমাজের সমস্যা সমাধানে কমিউনিটি পুলিশ কমিটির সদস্যদের কাজ করার আহবান জানান। এসময় তিনি সর্তক করে দিয়ে বলেন, নিরাপত্তার সমস্যা হবে এমন কাজ না করতে আহবান জানান। এর আগে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে আইজিকে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরণ করে নেন খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ। তাঁরই আগমনে খাগড়াছড়ি জেলা সজ্জিত করা হয়েছে নানা আয়োজন। জনতার ঢল পড়েছে সমাবেশস্থলে।

 জেলা পুলিশ সুপার মো. মজিদ আলী বিপিএম (সেবা) এর সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পরিবহন পুলিশ কমিউনিটির প্রতিনিধি এস.এম  শফি, স্কুল পুলিশিং প্রতিনিধি শিক্ষিকা শ্রীলা তালুকদার, ব্যবসায়ী পুলিশিং কমিটির প্রতিনিধি সুদর্শন দত্ত, হেডম্যান প্রতিনিধি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রণিক ত্রিপুরা। এছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রইছ উদ্দিন, পৌর মেয়র রফিকুল আলম, কমিউনিটিং পুলিশির কমিটির প্রতিনিধি, সামরিক-আধাসামরিক বাহিনীর কর্মকর্তা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি সহ জেলার উর্ধতন কর্মকর্তা, শিক্ষাবিদ, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*