পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে জননেত্রী শেখ হাসিনা খুবই আন্তরিক: পার্বত্যসচিব নববিক্রম

IMG_5512নিজস্ব প্রতিবেদক: পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি বলেছেন, দেশের উন্নয়নের পাশাপাশি বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন ও স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা খুবই আন্তরিক।

তিনি আজ (সোমবার) দুপুরে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজের বার্ষিক সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা-২০১৬এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে নারী শিক্ষার প্রসারে একটি মাত্র মহিলা কলেজ থাকলেও এ কলেজে অদ্যাবধি ডিগ্রীতে উন্নীত না হওয়ায় তা দু:খজনক। এসময় তিনি গত বছর পুরো খাগড়াছড়ি জেলায় একমাত্র মহিলা কলেজ ভাল ফলাফল অর্জন করায় কলেজ কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বলেন, খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজকে ডিগ্রীতে উন্নীত করার জন্য সরকারের যে কয়টি দপ্তরে যোগাযোগ করা দরকার তিনিই সবকটি দপ্তরে অবহিত করবেন এবং অচিরেই এ কলেজকে ডিগ্রীতে উন্নীত করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেনে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য সচিবের সহধর্মিনী ও বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী অনামিকা ত্রিপুরা।

কলেজ অধ্যক্ষ মো. শাহ আলমগীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস-চেয়ারম্যান তরুন কান্তি ঘোষ বলেন, যেহেতু দেশের মোট সংখ্যার অর্ধেকাংশই হচ্ছে নারী। সেহেতু নারী শিক্ষার উন্নয়নে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজকে ডিগ্রীতে উন্নীত করার দাবীটি যৌক্তিক। এ দাবী বাস্তবায়ন করা হলে এ কলেজে অধ্যয়নরত প্রায় ৮শ ছাত্রীসহ পুরো খাগড়াছড়ি জেলার নারী শিক্ষার্থীরা খুবই উপকৃত হবে।

এদিকে, বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, এ কলেজের শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষক সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য প্রধান অতিথি’র দৃষ্টি আকর্ষন করেছন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর বোধিসত্ত্ব দেওয়ান, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা। অনুষ্ঠানে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শিক্ষার্থীদের দাবীর প্রেক্ষিতে কলেজের সকল শিক্ষার্থীদের কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে শিক্ষা সফরের ব্যয় খরচ বহন করবেন বলে ঘোষনা দেন। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমান, নির্বাহী কর্মকর্তা আ: রহমান তরফদার, খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের প্রভাষক মো. রাশেদুল হক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, কলেজ শিক্ষকমন্ডলী ও শিক্ষার্থীরা।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক ও প্রতিযোগিতার আহবায়ক মো. জহিরুল ইসলাম এবং কলেজের দাবী-দাওয়া নিয়ে বক্তব্য রাখেন কলেজ ছাত্রী আকলিমা আক্তার। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মানবিক বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী গরী চাকমা। পরে শিক্ষার্থীদের আয়োজনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশনায় গান পরিবেশন করেন পার্বত্য সচিবের সহধর্মিনী সংগীত শিল্পী অনামিকা ত্রিপুরা।

এর আগে প্রধান অতিথিসহ অতিথিদের কলেজের পক্ষ হতে ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করা হয় এবং প্রধান অতিথি বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

সমাপনী বক্তব্যে কলেজ অধ্যক্ষ মো. শাহ আলমগীর সচিবের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, পার্বত্য সচিব নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এ অঞ্চলের কৃতি সন্তান। তার অনুমোদনে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড হতে পাওয়া ১৮টি কম্পিউটার সেট পেয়ে এ কলেজে কম্পিউটার ল্যাব খোলা হয়েছে। তিনি পরীক্ষার খাতা আনা-নেয়া ও বিশেষ প্রয়োজনে কলেজে ১টি ছোট আকারে গাড়ী বরাদ্দ পেতে পার্বত্য সচিব ও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যানের প্রতি দাবী রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*