পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে জননেত্রী শেখ হাসিনার মুখে ‘না’ শুনেনি: কংজরী

3861নিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন ও নারীদের শিক্ষিত গড়ে তোলার লক্ষ্যে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুখে কখনো ‘না’ শুনেনি। তিনিই মূলত: পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠায় আন্তরিক হয়ে বিশ্ব দরবারে পার্বত্য চট্টগ্রামকে উন্নয়নের মাইলফলক হিসেবে রূপ দিয়েছেন । তিনি আজ (মঙ্গলবার) বিকালে খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজের উদ্যোগে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে উদার মহানুভবতায় রাজধানীর বুকে একখন্ড পার্বত্য চট্টগ্রাম গড়ে ওঠছে। রাজধানীতে হাজার কোটি টাকার মূল্যবান ১৯৪শতক ভূমির ওপর পার্বত্য কমপ্লেক্স নির্মাণ কাজ শুরু করেছে সরকার। তিনি আরো বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা, শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে খাগড়াছড়ি জেলার সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার নেতৃত্বে আমরা খাগড়াছড়িতে সকলে মিলেমিশে কাজ করে যাচ্ছি।

এসময় তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, খাগড়াছড়ি জেলার একমাত্র মহিলা কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা প্রত্যেকজনই একটি পরিবারের মা। এ কলেজের প্রত্যেক শিক্ষার্থীরা যদি একটি পরিবারের মা হিসেবে শিক্ষিত হন তাহলে পার্বত্যবাসীকে অদুর ভবিষ্যতে আর অনগ্রসর পশ্চাৎপদ এলাকার বাসিন্দা বলে পরিচয় দিতে হবে না। তিনি শিক্ষার্থীদের সত্যিকারের মেধায় শিক্ষিত হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে খাগড়াছড়িকে জাতীয় মূলস্রোতধারায় একীভূত করা ও জাতির জনক শেখ মজিবুর রহমানের স্বপ্ন পূরণে শিক্ষিত জাতি গঠনে পড়ালেখায় মনোযোগি হওয়ার আহবান জানান।

3875প্রধান অতিথি কংজরী চৌধুরী কলেজের নানা সমস্যার উপলব্ধি করে আগামী মে মাসের মধ্যে কলেজের দক্ষিণ পার্শ্বে মাটি ভরাট করার জন্য পার্বত্য জেলা পরিষদ হতে বরাদ্দ প্রদান করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন। এছাড়াও তিনি খাগড়াছড়ি জেলার একমাত্র মহিলা কলেজকে ডিগ্রী কলেজে উন্নীত করতে আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও ১০মার্চ শিক্ষা সচিবের আগমন ঘটলে এ কলেজের সকল সমস্যার কথা তুলে ধরবেন বলে আশ্বস্থ্য করেন এবং কলেজ অধ্যক্ষকে এ সংক্রান্ত যাবতীয় নথিপত্র প্রস্তুতের আহবান জানান।

কলেজ অধ্যক্ষ মো.শাহ আলমগীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সাবেক অধ্যক্ষ বোধিসত্ত্ব দেওয়ান, প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ড. সুধীন কুমার দত্ত, সাংবাদিক আবু দাউদ ও শিক্ষার্থী মিনাইচিং চৌধুরী প্রমূখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের প্রভাষক মো. রাশেদুল হক, শহর সমাজ সেবা কর্মকর্তা রোকেয়া বেগম কেয়া, খাগড়াছড়ি পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মাসুদুল হক মাসুদ, খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির গবেষক চিংলামং চৌধুরী সহ কলেজের শিক্ষকবৃন্দ ও শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, এবছর খাগড়াছড়ি সরকারি মহিলা কলেজে মোট ১৯টি ইভেন্টে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় এবং বিশেষ অতিথিবৃন্দ ও উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের কলেজের পক্ষ হতে উপহার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, কলেজের প্রভাষক মো. জহির।

এদিকে,  অনুষ্ঠানে  এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ুয়া এক প্রতিবন্ধীর ছাত্রীর হাতে সাহায্যের চেক তুলে দেন খাগড়াছড়ি শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা রোকেয়া বেগম কেয়া। এর আগে বিশেষ অতিথি হিসেবে খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র রফিকুল আলম অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে কলেজ পরিদর্শন করেন। কলেজের অবকাঠামো মূলক বিভিন্ন সমস্যার কথা শুনেন এবং কলেজের উন্নয়নে পৌরসভার পক্ষ হতে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন মেয়র। তবে বিশেষ কাজে পৌর মেয়র রফিকুল আলম অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত ছিলেন বলে জানিয়েছেন কলেজ অধ্যক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*