নকল ব্যালটে নৌকার সীল: বান্দরবানে পুন: নির্বাচনের দাবীতে জেএসএস’র সংবাদ সম্মেলন

jss rangaনিজস্ব প্রতিবেদক: ২৩শে এপ্রিল বান্দরবানে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সরকারী দলের নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে নকল ব্যালটে জাল ভোট প্রদানের মাধ্যমে জনগণের মেন্ডেটকে অবৈধ পন্থায় ছিনতাইয়ের প্রতিবাদে ও পুন:নির্বাচনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি(জেএসএস)।

সোমবার সকালে বান্দরবান জেএসএস এর জেলা কার্যালয়ে জেএসএস ও সতন্ত্র প্রার্থীদের উদ্যোগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন জেএসএস এর বান্দরবান জেলা সভাপতি উচমং মার্মা, সাধার সম্পাদক ও রোয়াংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যবামং মার্মা,কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক জলিমং মামা, আলেক্ষ্যং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী সাচিংথুই, রাজবিলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী মংপ্রু, রোয়াংছড়ি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী অংশৈমংসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও সংগঠনের নেতা কর্মীরা।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন,  ২৫টি ইউনিয়নের ফাঁসিয়া খালি, নোয়াপতং, সরই ও সুয়ালক ছাড়া বাকি ২১টি কেন্দ্রে সুষ্ঠু নির্বাচন হয়নি। ২১টি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি কেন্দ্রে ভোট গননার সময় নৌকা প্রতীকে সীল যুক্ত শত শত নকল ব্যালট পেপার পাওয়া গেছে। এর মধ্যে  ভোট কেন্দ্রের আশ পাশ থেকে পরিত্যক্ত কিছু নকল ব্যালট পেপার সংগ্রহ করা হয়। যার সাথে আসল ব্যালট পেপারের কোন মিল নাই। নৌকা প্রতীকে সীল যুক্ত নকল ব্যালট পেপার গুলো ভোট শুরু হওয়ার আগে এবং গননার আগে ভোট বক্রে ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও এসব নকল ব্যালটের কাগজ অত্যান্ত নিম্নমানের ও ব্যালট পেপার গুলো আকারে সামান্য ছোট।

বক্তারা আরো জানান, ভোট গননার সময় নৌকা প্রতীকে সীলযুক্ত নকল ব্যালট পেপার গুলো অন্যান্য প্রার্থীর এজেন্টরা দেখে প্রতিবাদ করলে দায়িত্বরত প্রিজাইডিং অফিসারের সাথে তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। এর পরেও দায়িত্বরত প্রিজাইডিং অফিসাররা এই অভিযোগ আমলে না নিয়ে নকল ব্যালট পেপার গুলো নিয়ে ভোট গননা করেছে এবং ফলাফলও প্রকাশ করেছে। এক পর্যায়ে নকল ব্যালট পেপার নিয়ে ভোট গনান করায় কেন্দ্রে মোট ভাটারের ছেয়ে কাষ্টিং ভোট বেড়ে গেছে। জেএসএস নেতারা আরো জানান, ভোট গননা শেষে বান্দরবান রোয়াংছড়ি উপজেলার আলেক্ষ্যং ইউনিয়নের ১নং আলেক্ষ্যং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ৪৩টি, ৪নং কচ্ছপতলি জুনিয়র হাইস্কুল থেকে ৭টি, ৮নং হান্টুহ্রী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৮৯টি, ৯নং বেক্ষ্যং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৬৯টি, তারাছা ইউনয়নের ১নং ওয়ার্ডের তুংপ্রু পাড়া কেন্দ্রে ৭২টি, ২নং ওয়ার্ডের ছাইঙ্গ্যা পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৬২টি, রোয়াংছড়ি সদর ইউনিয়নের রোয়াংছড়ি মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৫০০টি সহ আরো বিভিন্ন কেন্দ্রের আশ পাশ থেকে শত শত নৌকা প্রতীকে সীল যুক্ত নকল ব্যালট পেপার পরিত্যক্ত অবস্থায় স্থানীয় জনগন পেয়েছে। এতেই স্পষ্ট বুঝা যায় ২১টি কেন্দ্রে অবাধ সুষ্ট ও নিরপেক্ষ ভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হয়নি এবং জনগন গনতান্ত্রিক উপায়ে তাদের ভোট প্রদান করতে পারেনি। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা নকল ব্যালট পেপার যুক্ত নির্বাচন বাতিল করে পুন: নির্বাচনের দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*