দীঘিনালায় তিন ইউনিয়নে নৌকা-২, স্বতন্ত্র এক প্রার্থী বিজয়ী

Panনিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ি দীঘিনালার তিনটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বেসরকারি ভাবে নৌকা প্রতিকে আওয়ামীলীগের দুই প্রার্থী ও পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) এক প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। চেয়ারম্যান পদে বিজয়ীরা হলেন- ১ নম্বর মেরুং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. রহমান কবীর রতন, ২ নম্বর বোয়ালখালী ইউনিয়নে জেএসএস মনোনীত চয়ন বিকাশ চাকমা (আনারস) ও ৩নম্বর কবাখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। শনিবার (২৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ভোট গণণা শেষে তিন ইউনিয়নে দায়িত্বপালনকারী রিটার্নিং অফিসারগণ বেসরকারীভাবে বিজয়ীদের নাম ঘোষনা করেন।

মেরুং ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের প্রশিক্ষক মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, ১ নম্বর মেরুং ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. রহমান কবীর রতন ৭ হাজার ২৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেএসএস মনোনীত লোচন দেওয়ান আনারস প্রতীকে পান ৬ হাজার ৪১ ভোট।

অপরদিকে, বোয়ালখালী ও কবাখালী ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও দীঘিনালা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জওহর লাল চাকমা জানান,  ২ নম্বর বোয়ালখালী ইউনিয়নে জেএসএস মনোনীত চয়ন বিকাশ চাকমা (কালাধন) আনারস প্রতীকে ৪ হাজার ৫শ’ ৪১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের নিউটন মহাজন পান ২ হাজার ২শ’ ২৪ ভোট। ৩ নম্বর কবাখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. জাহাঙ্গীর হোসেন নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪ হাজার ৫৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতীদ্বন্দ্বী ইউপিডিএফ মনোনীত বিশ্ব কল্যাণ চাকমা পান ৩ হাজার ১শ’ ৬১ ভোট।

প্রসংগত: উপজেলার ৩টি ইউনিয়নে মোট চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিল ১৫জন। তন্মধ্যে- বোয়ালখালী ইউপি-৫জন, কবাখালি ইউপি-৪জন, মেরুং ইউপি-৬জন। এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী-৩জন, বিএনপি-২, জাসদ-১, ইসলামী আন্দোলন-১ ও স্বতন্ত্র-৮জন। সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী সদস্য-৩০জন, সাধারন ওয়ার্ড প্রার্থী-১১০জন। তিনটি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা-৫১৪২৪, পুরুষ-২৬৫৯৮ ও মহিলা ভোটার-২৪৮২৬। ভোট কেন্দ্র ছিল-৪৬টি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*