টার্গেট ২৩এপ্রিল: ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলায় লড়াই হবে আওয়ামীলীগ বনাম স্বতন্ত্র প্রার্থীদের

IMG_6255মুহাম্মদ আবুল কাসেম: টার্গেট ২৩এপ্রিল (শনিবার)। সকাল-৮টা হতে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সময়টুকু কাজে লাগাতে মরিয়া খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের ২৬জন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ২১০জন প্রার্থী। জমে উঠা প্রচারনার আজ (বৃহস্পতিবার) শেষ দিন। শুক্রবার বন্ধ থাকবে সকল প্রকার প্রচারনা। প্রার্থীরা যেমনি প্রস্তুত সুষ্ঠু ভাবে ভোট গ্রহণ করার, তেমনি প্রস্তুত খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসন। তবে অনেক প্রার্থী হিসাব কসছেন প্রভাব বিস্তার করে জয় নিশ্চিত করতে। নানা কৌশল খাটাচ্ছেন প্রার্থীরা স্ব-স্ব জয় নিশ্চিত করতে।  প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়িয়ে চালিয়ে প্রার্থীরা এখন ছুটছেন ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে। জানা যায়, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলার অন্যান্য উপজেলায় পরস্পর বিরোধি অভিযোগের হিড়িক পড়লেও খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে কোন প্রার্থী বা কোন রাজনৈতিক দলের পক্ষ হতে অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে স্থানীয়দের অভিমত, ৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টি ইউনিয়নে জাতীয় রাজনৈতিক বিএনপি প্রার্থী না দেয়ায় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় এবারের নির্বাচনে আওয়ামীলীগের ৫ প্রার্থীর সাথে লড়াই হবে স্বতন্ত্র প্রার্থী বা আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ’র সমর্থিত প্রার্থীদের।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়,  খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন ৪জন কর্মকর্তা। তন্মধ্যে সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার কামরুল হাসান রিটার্নিং অফিসার হিসেবে  দায়িত্বে রয়েছেন ৩নং গোলাবাড়ী, ৪নং পেরাছড়া ও ৫নং ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের। অপরদিকে, ১নং খাগড়াছড়ি সদর ইউনিয়ন ও ২নং কমলছড়ি ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসার হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বিপ্লব বড়ুয়।

সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. কামরুল হাসান জানান, সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন ও জেলা নির্বাচন অফিস প্রস্তুত রয়েছে। তিনি আরো জানান, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার পাচটি ইউনিয়নে মোট চেয়ারম্যান প্রার্থী ২৬জন। তন্মধ্যে সদর ইউনিয়নে-৫জন, গোলাবাড়ী ইউপিতে-৭জন, কমলছড়িইউপি-৬জন, পেরাছড়া ইউপিতে ৩জন ও ভাইবোনছড়া ইউপিতে-৫জন লড়ছেন। এছাড়া সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী সদস্য-৪১জন। সাধারন ওয়ার্ড প্রার্থী-১৪৩জন। চেয়ারম্যান পদে এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী ৫জন, বিএনপি-১ ও জাসদ-১, স্বতন্ত্র-১৯। ৫টি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা-৪২৭২৮জন, পুরুষ-২১৪৯০জন ও মহিলা-২১২৪২জন। মোট ৪৫টি ভোট কেন্দ্রের ভোট কক্ষ রয়েছে-১৩৫টি।

এদিকে, ১নম্বর খাগড়াছড়ি সদর ইউপিতে মোট ভোটার ৬৩২৯জন, পুরুষ-৩১৭৫জন, মহিলা-৩১৫৪ জন, ভোট কক্ষ-২০টি, এ ইউনিয়নে ৩টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে লড়ছেন-৭প্রার্থী ও ৯টি সাধারন ওয়ার্ডে প্রার্থী রয়েছে-২৭জন।

২নম্বর কমলছড়ি ইউপিতে ভোটার-৯৪৪৬জন, পুরুষ-৪৮০৩জন, মহিলা-৪৬৪৩জন, ভোট কক্ষ-৩০টি, তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে লড়ছেন ১১জন ও সাধারন ৯টি ওয়ার্ডে ৩১জন প্রার্থী।

৩নম্বর গোলাবাড়ী ইউপিতে ভোটার-৬৩৫২ জন, পুরুষ-৩১৭৮ জন, ৩১৭৪ জন, ভোট কক্ষ-২২টি।তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে লড়ছেন ০৮জন ও সাধারন ৯টি ওয়ার্ডে লড়ছেন ৩৭জন প্রার্থী।

৪নম্বর পেরাছড়া ইউপিতে ভোটার-৭৩৮০জন, পুরুষ-৩৬৮২ জন, মহিলা-৩৬৯৮ জন, ভোট কক্ষ-২৪টি। তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে লড়ছেন ০৯জন ও সাধারন ৯টি ওয়ার্ডে ২১জন।

৫নম্বর ভাইবোনছড়া ইউপি: ভোটার-১৩২২১জন, পুরুষ-৬৬৫২, মহিলা-৬৫৬৯, ভোট কক্ষ-৩৯টি। তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে লড়ছেন ০৮জন ও সাধারন ৯টি ওয়ার্ডে ২৯জন প্রার্থী।

সদর উপজেলায় আ’লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীরা হলেন- ১নম্বর সদর ইউপিতে-বর্তমান চেয়ারম্যান আম্যে মারমা, ২নম্বর কমলছড়ি ইউপি-রুতান চৌধুরী, ৩নম্বর গোলাবাড়ী ইউপি-বর্তমান চেয়ারম্যান জ্ঞান রঞ্জন ত্রিপুরা, ৪নম্বর পেরাছড়া ইউপিতে বর্তমান চেয়ারম্যান সঞ্জীব ত্রিপুরা, ৫নম্বর ভাইবোনছড়া ইউপিতে-বনেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। এছাড়া খাগড়াছড়ি সদর ইউনিয়নে বিএনপি প্রার্থী-ক্ষেত্র মোহন রোয়াজা ও ২নং কমলছড়ি ইউপিতে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ’র মনোনীত প্রার্থী আওউ মারমা (মশাল)।

অপরদিকে, সদর উপজেলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীরা হলেন- সদর ইউপিতে-জুকেশ চাকমা (ঘোড়া), পরিমল চাকমা (মোটর সাইকেল) ও প্রীতিবিন্দু দেওয়ান আনারস। কমলছড়ি ইউপিতে-সন্তোষময় চাকমা (মোটর সাইকেল), সাউপ্রু মারমা (আনারস), সুমন আহম্মেদ (চশমা) ও সূর্য্য বিকাশ চাকমা (ঘোড়া)। গোলাবাড়ী ইউপিতে-আবুল হোসেন (আনারস), জেলা বিএনপির বিদ্রোহীগ্রুপের মো. এরশাদ হোসেন (মোটরসাইকেল),ক্যাউচি মার্মা (চশমা), মংক্রজাই মারমা (অটোরিকশা), দিপংকর ত্রিপুরা (ঘোড়া) ও বিপুল ভূষণ ত্রিপুরা (ঢোল)। পেরাছড়া ইউিপিতে- তপন বিকাশ ত্রিপুরা (মোটর সাইকেল) ও মিল্টন চাকমা (আনারস)। ভাইবোনছড়া ইউপিতে-বর্তমান চেয়ারম্যান কান্তি লাল দেওয়ান (মোটর সাইকেল), সাবেক চেয়ারম্যান আপ্রুশি মারমা (আনারস) ও হেভিওয়েট প্রার্থী বর্তমান ওয়ার্ড মেম্বার পরিমল ত্রিপুরা (চশমা) সহ অপর বাঙালি প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন(ঘোড়া)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*