গুণীজনরা পার্বত্য চট্টগ্রামের উজ্জল নক্ষত্র হয়ে থাকবে: পাজেপ চেয়ারম্যান কংজরী

guniনিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী বলেছেন, গুণীজনরা পার্বত্য চট্টগ্রামে উজ্জ্বল নক্ষত্র হয়ে থাকবে। তাদের রেখে যাওয়া অবদানের আলোতে আলাকিত হয়ে এ সমাজেই বহু গুণে গুনান্বিত গুণীজন সৃষ্টি হবে।

তিনি আজ (শুক্রবার) বিকালে জেলা শহরের অরুনিমা কমিউনিটি সেন্টারে সনাতন সমাজ কল্যাণ পরিষদ, সদর উপজেলার শাখার উদ্যোগে গুণীজন সংবর্ধনা-২০১৫ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬সালে ক্ষমতায় এসে পাহাড়ের স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠায় ১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর শান্তিচুক্তি সম্পাদন করার ফলশ্রুতিতে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির কল্যানে পার্বত্য জেলা পরিষদ গঠিত হয়। গঠনের পর সর্বপ্রথম তিনিই দায়িত্ব গ্রহণের পর পরই এ জেলার ২২জন গুণীজনকে বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে ৯টি ইভেন্টে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। তিনি আরো বলেন, গুণীজন সংবর্ধনা পার্বত্য চট্টগ্রামের ইতিহাসে বিরল ঘটনা। যে সমাজে গুণীজনদের সম্মাননা প্রদান করা হবে না সে সমাজের গুণীজন সৃষ্টি হবে না। তারই ধারাবাহিকতায় এবারো বৈসাবি পালনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রস্তুতি সভার সিদ্ধান্তমতে এবছরো ইভেন্ট বাড়িয়ে ২২জনের অধিক গুণীজনকে সম্বর্ধনা দেয়া হবে।

প্রধান অতিথি বলেন, পার্বত্য জেলা পরিষদ গঠন করা হয়েছে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির সুখ-দুখের ভাগীদার হওয়ার জন্য। তিনি দায়িত্ব গ্রহণের পর জনগণের পাশ্বে পার্বত্য জেলা পরিষদ যেন পাশে থাকতে পারে তারই লক্ষ্যে গত দুর্গাপূজায় পূজারীদের শুভেচ্ছা স্বরূপ ২টি বস্ত্রদান, ঈদের সময়ে ইমাম মুয়াজ্জিনদের ইসলামি পোষাক ও বৌদ্ধ ভিক্ষুদের ১সেট করে চীবর দান করেছেন। এসময় তিনি প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে বলেন, আগামী এপ্রিল মাসের মধ্যে শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন করা হবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে তিনি শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়ে প্রকল্প গ্রহনের জন্য সনাতন সমাজ কল্যাণ পরিষদ ও সনাতন ছাত্র যুব পরিষদকে শিক্ষা প্রকল্প গ্রহনের জন্য আহবান জানান। এসময় তিনি শিক্ষামূলক গৃহীত প্রকল্প বাস্তবায়নে পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ হতে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং গুণীজন সম্বর্ধনা আয়োজন করায় আয়োজকদের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি নারীদের ক্ষমতায়ন নিয়ে গুরুত্বারোপ করেছেন।

সনাতন সমাজ কল্যাণ পরিষদ, সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি সমর কৃষ্ণ চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য নির্মলেন্দু চৌধুরী, প্রধান উপদেষ্টা তপন কান্তি দে প্রমূখ।

এসময় প্রধান অতিথি সনাতন সমাজে শিক্ষা ও সাহিত্যে চন্দ্র শেখ আচার্য্য (মরনোত্তর), শিল্প ও সাংস্কৃতিকে মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য্য (মরনোত্তর), সাংস্কৃতিক-অমর কৃষ্ণ শীল (মরনোত্তর), চিকিৎসায়-ডা. প্রফুল্ল কুমার দে ও সমাজ সেবায় বাদল কান্তি চৌধুরীকে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। মরনোত্তর গুণীজনদের সম্মাননা গ্রহণ করেন পরিবারের সদস্যরা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন গুণীজন সংবর্ধনা-২০১৫ উপ-কমিটির সদস্য সচিব প্রভাত তালুকদার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*