গুইমারায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীসহ ৬মাসের সন্তানকে গলাটিপে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী

Golatipaনিজস্ব প্রতিবেদক: দাবীকৃত যৌতুক না পেয়ে খাগড়াছড়ির নব ঘোষিত উপজেলা গুইমারার বড়পিলাক এলাকায়  মোছাঃ মাজেদা বেগম (২০) ও ৬ মাসের শিশু সন্তান রিদওয়ানকে গলাটিপে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী সাবের আলী (২৪)। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এই অমানবিক ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক স্বামী সাবের আলী, শ্বশুর মাহবুব আলী, শাশুড়ি রেনুয়ারা বেগম ও তার দেবর শাহজাহানকে আটক করেছে।  ঘাতক স্বামী সে উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ মাহবুব আলীর ছেলে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: মোস্তাফিজুর রহমান জানান,  তিনি আরো জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী মোছাঃ মাজেদা বেগম (২০) ও ৬ মাসের শিশু সন্তান রিদওয়ানকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেছে মাজেদার পরিবার। ঘটনার পর পরই স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশ ঘাতক সাবের আলীসহ  অপরাপরদের আটক করে। এ ঘটনায় মেয়ের বাবা সাহাব উদ্দিন মেয়ের জামাই, শ্বশুর-শাশুড়ি ও দেবরসহ চার জনকে আসামী করে গুইমারা থানায় মামলা দায়ের করেন।

মেয়ের বাবা সাহাব উদ্দিন ও মা আম্বিয়া বেগম জানান, গত কয়েক দিন ধরে জামাই মোটরসাইকেল কেনার জন্য এক লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে তাদের মেয়ের উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাতে মেয়ে ও নাতি রেদোয়ানকে পরিবারের লোকজন গলা টিপে হত্যা করে। এদিকে ঘাতক সাবের আলী তার স্ত্রী ও শিশু পুত্রকে হত্যার দায় স্বীকার করে বলেন, সমাজ আমাকে এ কাজ করতে বাধ্য করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*