কুতুকছড়িতে গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সমাবেশ

20160405_132411নিজস্ব প্রতিবেদক: পূর্ণ স্বায়ত্তশাসন অর্জনের লক্ষ্যে ঐক্য সংহতি জোরদার করার আহ্বানের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের যুব সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থিত সংগঠনটির ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাঙামাটি সদর উপজেলার কুতুকছড়ি মাঠে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশকে ঘিরে সকাল থেকে তিন পার্বত্য জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে সড়ক ও নৌপথে গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী-সমর্থকেরা সমাবেশে যোগদেন এবং রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে সমাবেশের সমাপ্তি ঘটে

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করেন, সরকার পর্যটনশিল্প প্রসার, সড়ক নির্মাণ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান স্থাপনসহ উন্নয়নের নামে পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি বেদখল করে পাহাড়িদের উচ্ছেদ করছে। পর্যটন এলাকাগুলোতে সহজ-সরল পাহাড়িদের সামাজিক বিশৃঙ্খলা ও অপসংস্কৃতির বীজ ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

সমাবেশের সভাপতি ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি মাইকেল চাকমা বলেন, সরকার গৃহীত উন্নয়নের সঙ্গে পাহাড়িদের জীবনমান উন্নয়নের কোনো সম্পর্ক নেই। এ উন্নয়নে জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন হবে না। বর্তমান সরকারকে স্বৈরতান্ত্রিক উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে দেশের ক্ষুদ্র জাতিসত্তার মানুষকে বাঙালি বানানো হয়েছে। আমরা সংবিধানের এ সংশোধনী প্রত্যাখ্যান করেছি।’

সমাবেশ উপলক্ষে ইউপিডিএফের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি প্রসিত বিকাশ খীসার পাঠানো শুভেচ্ছা বার্তা পড়ে শোনান ইউপিডিএফের সদস্য নূতন কুমার চাকমা। বার্তায় জুম্ম (ক্ষুদ্র জাতিসত্তা) জাতীয় ঐক্যে বিভেদ সৃষ্টির বিষয়ে সজাগ ও পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশে মানুষের অধিকার আদায়ে সচেতন থাকতে যুব সমাজের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। তিনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনু হত্যার বিচারের দাবিতে সারা দেশে আন্দোলনরত জনগণের সঙ্গে সংহতি বজায় রাখতে গণতান্ত্রিক যুব ফোরামসহ পাহাড়ি জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের সভাপতি সোনালী চাকমা বলেন, ‘আমাদের পূর্ববর্তী নেতাদের ভুলের মাসুল আমাদের এখন দিতে হচ্ছে। ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠায় আমাদের চিন্তা এবং কাজের সম্মিলন ঘটাতে হবে।’

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন সাজেক নারী সমাজের সভাপতি নিরূপা চাকমা, ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ আন্দোলনের সভাপতি কাজলী ত্রিপুরা, টেকনাফ-উখিয়া সংহতি পরিষদের প্রতিনিধি মনিশংকর চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রিপা চাকমা ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সিমন চাকমা। স্বাগত বক্তব্য দেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*