কল্পনা চাকমা অপহরণের তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান

পার্বত্যবাণী ডেস্ক: ১৯৯৬ সালের কল্পনা চাকমা অপহরণ বিষয়ে আদালতে রাঙামাটি পুলিশ সুপার কর্তৃক প্রদত্ত চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন পাহাড়ী নারী সংগঠন  হিল উইমেন্স ফেডারেশন। আজ  (রোববার) গণমাধ্যমে হিল উইমেন্স ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক মিনাকি চাকমার স্বাক্ষরে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের সভাপতি সোনালী চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা   যুক্ত বিবৃতিতে বলেছেন, ‘এটিও পূর্বের তদন্ত প্রতিবেদনগুলোর মতোই পুরোপুরি সাজানো, যা অত্যন্ত নিন্দনীয় এবং স্পষ্টতই চিহ্নিত অপরাধীদের রক্ষার অপচেষ্টা ছাড়া কিছুই নয়।’ বিবৃতিতে নারী নেতৃদ্বয় অপহরণের ব্যাপারে ‘গণতদন্ত কমিশন গঠন’ এবং চিহ্নিত অপহরণকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন এবং অপহৃতদের একজন কল্পনা চাকমার ভাই কালিন্দী কুমার চাকমার সাক্ষ্যসহ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষ ও শক্তিশালী সাক্ষ্যপ্রমাণ ও আলামত থাকা সত্ত্বেও তাদেরকে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় না এনে সরকার এটাই প্রমাণ করেছে যে, তারা পার্বত্য চট্টগ্রামে আইনের শাসন ও সংবিধান-স্বীকৃত মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় আগ্রহী নয়।’

প্রসঙ্গত: ১৯৯৬ সালের ১১ জুন মধ্যরাতে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার নিউ লাইল্যাঘোনার নিজ বাড়ি থেকে কল্পনা চাকমা অপহৃত হন। তিনি ছিলেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*