কংজরী চেয়ারম্যান ধার্মিক হওয়ায় খাগড়াছড়ির ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসমূহের উন্নয়ন হচ্ছে: খগেশ্বর ত্রিপুরা

IMG_7521নিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী একজন নৈতিক চরিত্রবান ও ধার্মিক ব্যক্তি হওয়ায় খাগড়াছড়ি জেলার সার্বিক উন্নয়নসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সমূহের উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সমূহের উন্নয়নের মাধ্যমেই যেমনি সামাজিক অবক্ষয় রোধ হচ্ছে তেমনি বর্তমান জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের ভাবমূর্তি আরো বেশি সমুজ্জিত হচ্ছে।
আজ (শনিবার) জেলার সীমান্তবর্তী পানছড়ি উপজেলার লতিবান আর্যমিত্র বৌদ্ধ বিহারে পাজেপ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর প্রতিশ্রুতিকৃত ১লক্ষ টাকা অনুদানকালে পাজেপ চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের অন্যতম সদস্য, শিক্ষানুরাগী খগেশ্বর ত্রিপুরা এ মন্তব্য করেন।
অনুদানের নগদ ১লক্ষ টাকা বিহারের পক্ষে গ্রহণ করেন বিহারাধ্যক্ষ সুদর্শী স্থবির।

তিনি বলেন, বিহারটির নির্মাণকাজের জন্য খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ১লক্ষ টাকা অনুদানের প্রতিশ্রুতি দিলেও সরকারি কাজে ব্যস্ত থাকায় নির্ধারিত সময়ে অনুদানের অর্থ প্রদানে কিছুটা বিলম্বিত হয়েছে। তিনি পাজেপ চেয়ারম্যান কংজরী সম্পর্কে এলাকাবাসীর নিকট জানান যে, বর্তমান পাজেপ চেয়ারম্যান একজন ধার্মিক ব্যক্তি। প্রতিমাসে অন্তত: তিনি ৪দিন অষ্টশীল পালনসহ ভোর বেলায় ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলে তিনি দিনের প্রথম সুর্য্য দেখেন এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সমূহের উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতি অর্থ বছরে পার্বত্য জেলা পরিষদ, খাগড়াছড়ির উন্নয়ন প্রকল্প তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করে একাধিক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বর্তমান পরিষদ। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, কোটি টাকার মালিক ও মন্ত্রী-এমপি হওয়ায় গর্বের কিছুই নয়। তবে গর্ব করা যেতে পারে যদি সমাজের কেহ নৈতিক চরিত্রবান হতে পারে। আর নৈতিক চরিত্রবান হওয়ার অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। এসময় তিনি এলাকাবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলে সমাজ গঠনের আহবান জানিয়ে বিহারের জন্য ১টি হারমোনিয়াম ও ১টি তবলা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দেন।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি কালাচান চাকমা, সাধারন সম্পাদক সুরেশ চাকমা সহ এলাকার বিভিন্ন বয়সী গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*