এক বছর পেরিয়ে কংজরীরা : ভিশন-উন্নতসমৃদ্ধ খাগড়াছড়ি (১)

image_8(1)নিজস্ব প্রতিবেদক: উন্নত-সমৃদ্ধ খাগড়াছড়ি গঠনের ভিশন নিয়ে এক বছর পেরিয়ে দু’বছরে পা রাখল কংজরীরা। গত বছরের এই দিনে অর্থাৎ ২০১৫সালের ২৯মার্চ খাগড়াছড়ি জেলার সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার নেতৃত্বে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীসহ ১৩জন নারী-পুরুষ সদস্য দায়িত্ব ভার গ্রহণ করেন। শুধুমাত্র ১জন ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের সদস্য রণবিক্রম ত্রিপুরা ওই বছরের ৭এপ্রিল পদত্যাগ করায় এখনো শুণ্য রয়েছে পদটি।

অথচ দায়িত্ব গ্রহণের ৩৩দিন আগে নিয়োগপ্রাপ্ত ৮ম অন্তবর্তীকালীন পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী যে চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন এর আভাসও রণবিক্রম ত্রিপুরা ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান চাইথোঅং মারমার চায়ের কাপে ঝড়ে তাও ছিল আলোচনার বাহিরে। ৪-৫জন সদস্য নিয়ে বিগত অন্তবর্তীকালীন পরিষদ সম্প্রসারিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অপর দুই পার্বত্য জেলার ন্যায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের কলরব বৃদ্ধি করে জেলাবাসীর সার্বিক উন্নয়ন, আর্থ-সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজের মাধ্যমে এখানকার সমাজ ও সভ্যতাকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয়ে ফিরে দেখা বছরে বর্তমান পরিষদবর্গ কতটুকু কার্যকর ভূমিকা রেখেছে তার বিচার-বিশ্লেষন এখানকার জনগণের মাঝেই পরিস্ফুটিত। তবে বিগত বছরে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ সংক্রান্ত জাতীয় গণমাধ্যম, স্থানীয় গণমাধ্যম ও বিভিন্ন মহলে তুলনামূলক ভাবে তেমন সমালোচনার ঝড়ের ইতিহাস ডিংগিয়ে যেন দলীয় ভাবে বিবেচিত পরিষদবর্গের প্রধান বর্তমান চেয়ারম্যান শিক্ষাবান্ধব হিসেবে নিজের অবস্থান কার্যক্রমের মাধ্যমে পরিচয় দিয়েছেন। এমনটাই জানালেন একাধিক সদস্য ও বিভিন্ন মহলের কর্তা ব্যক্তিরা।

ফিরে দেখা বছরের তথ্য উপাত্ত ঘেটে দেখা যায়, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সকল-জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত হয়ে গতবছরের ১৬এপ্রিল জেলার বিভিন্ন খাতে অবদান রাখায় ৯টি ক্যাটাগরীতে ২২জনকে গুণীজন সম্বর্ধনা প্রদান করেন। যা পার্বত্য জেলা পরিষদের অধ্যয়ে ইতিহাসে প্রথম দৃষ্টান্ত।

kongjariএ বিষয়ে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের অনুভূতি জানতে চাহিলে তিনি বলেন,‌‌“যে সমাজে গুণীজনদের সম্মাননা দেয়া হয় না, সে সমাজে গুণীজন সৃষ্টি হয় না”। এবছর তিনি বৈসাবির আনন্দ ভাগাভাগি করার প্রাক্কালে গুণীজনদের সংবর্ধনা দেয়া হবে বলে ঘোষনা দিয়েছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী শান্তি ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে যে স্বপ্নে পার্বত্য জেলা পরিষদ সমূহে কলরব বৃদ্ধি  করেছেন। সেই স্বপ্ন আমরা খাগড়াছড়ি জেলাকে একটি উন্নত-সমৃদ্ধ জেলায় পরিণত করতে জেলার সাংসদ কুজেন্দ্র লাল নেতৃত্বে বাস্তবায়নে  বদ্ধ পরিকর। সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠা থাকলে জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হলে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নে গতি ত্বরান্বিত হবে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কার্যক্রমে গতিশীলতা আসবে। তিনি পরিষদের সংশ্লিষ্ট সকলকে যার যার অবস্থান থেকে স্ব-স্ব দায়িত্ব কর্তব্য যথাযথ ভাবে সম্পাদন ও পারস্পরিক আস্থা রেখে কাজ  করার উদার্থ আহবান জানান”।

যে যে দপ্তরের দায়িত্বে: মোঃ জাহেদুল আলম- স্বাস্থ্য বিভাগ ও স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, মোঃ আব্দুল জববার-পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ, নির্মলেন্দু চৌধুরী-বাজার ফান্ড সংস্থা ও হর্টিকালচার বিভাগ(পার্কসহ), আশুতোষ চাকমা- কৃষি স¤প্রসারণ বিভাগ, সতীশ চাকমা- সমাজ সেবা বিভাগ ও সরকারী শিশু সদন, জুয়েল চাকমা- ক্রীড়া বিভাগ ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউ, মংক্যচিং চৌধুরী- প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ, রেম্রাচাই চৌধুরী- মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগ ও জেলা সরকারি পাবলিক লাইব্রেরী, মংসুইপ্রু চৌধুরী- যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও পরিষদের প্রকৌশল বিভাগের দরপত্র কমিটি, খোকনেশ্বর ত্রিপুরা- জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ, খগেশ্বর ত্রিপুরা- প্রাণিসম্পদ বিভাগ ও সমবায় বিভাগ, শতরূপা চাকমা-মৎস্য বিভাগ ও রামগড় হ্যাচারী, নিগার সুলতানা-স্থানীয় পর্যটন ও বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন(বিএডিসি)। এছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা রণবিক্রম ত্রিপুরা গত ৭ এপ্রিল স্বেচ্ছায় সদস্য পদ হতে অব্যাহতির চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদনপত্র জমা দেওয়ার ফলে সৃষ্ট সদস্য’র শুন্যপদে নতুন সদস্য যোগদান না করা পর্যন্ত শিক্ষানুরাগী খগেশ্বর ত্রিপুরা দায়িত্ব পালন করছেন ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন(বিসিক),জেলা শিল্পকলা একাডেমী ও তুলা উন্নয়ন বোর্ড। এদিকে, বন্টনকৃত দপ্তর সমূহের দায়িত্ব প্রাপ্ত পাজেপ সদস্যদের নিকট খাগড়াছড়ি জেলাবাসী সুষ্ঠুভাবে স্ব-স্ব দায়িত্ব পালনে প্রত্যাশা থাকলেও কয়েকটি দপ্তরে অদক্ষ সদস্যদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বিশেষ করে প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগে গতিশীলতা ও খাগড়াছড়ির প্রাথমিক শিক্ষার প্রেক্ষাপট আগামীর ভবিষ্যত রচনা করার মতো যাচাই করে এ দপ্তরের দায়িত্ব রদবদলের দাবী তুঙ্গে।

প্রিয় পাঠক: এ সংক্রান্তে চলমান  সংবাদ পড়তে চাইলে ভিশন-উন্নতসমৃদ্ধ খাগড়াছড়ি (২) শিরোনাম দেখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*